উজবেকিস্তান

মহামারী করোনাভাইরাসের কারণে দীর্ঘ লকডাউনে বন্ধ ছিলো সব পর্যটন এড়িয়া, তবে ধীরে ধীরে উন্মুক্ত হচ্ছে বিশ্ব। পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে বিভিন্ন উদ্যোগ নিচ্ছে দেশগুলো। তবে উজবেকিস্তানের উদ্যোগটা চমকে যাওয়ার মত, দেশটিতে ভ্রমণের সময় যদি কেউ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়, তাহলে তিনি পাবেন তিন হাজার ডলার (২ লাখ ৬০ হাজার টাকা)।

নিজের দেশে পর্যটক টানতে সম্প্রতি উজবেকিস্তানের প্রেসিডেন্ট শাভকাত মিরজায়োইয়েভ অভিনব এ উদ্যোগের ঘোষণা দিয়েছেন। উজবেক সরকারের বিশ্বাস, বেড়াতে এসে কেউ করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হবে না। সংবাদ মাধ্যম টেলিগ্রাফ জানিয়েছে এমন খবর। উজবেকিস্তান ইতোমধ্যে ‘সেফ ট্রাভেল গ্যারান্টিড’ (নিরাপদ ভ্রমণের নিশ্চয়তা) শীর্ষক প্রচারণা শুরু করেছে।

গত ২৩ জুন উজবেকিস্তানের প্রেসিডেন্ট এ সংক্রান্ত একটি আদেশে স্বাক্ষর করেছেন। মূলত এর আওতায় কোনো বিদেশি ভ্রমণকালে কোভিড-১৯ রোগে ভুগলে তিন হাজার ডলার দেয়া হবে। দেশটিতে করোনা রোগীদের চিকিৎসা করাতে তিন হাজার ডলার গুনতে হয়, তাই করোনা চিকিৎসা ব্যয়ের কথা মাথায় রেখেই টাকার অঙ্ক নির্ধারণ করেছে উজবেক সরকার।

তবে করোনা আক্রান্ত হলে তিন হাজার ডলার পেতে হলে কয়েকটি শর্তও মানতে হবে। দেশটি ঘুরতে অবশ্যই সঙ্গে রাখতে হবে উজবেকিস্তানের স্থানীয় ট্যুর গাইড। থাকতে হবে গাইড, হোটেল ও পর্যটন স্পটগুলোর স্থানীয় সরকারের কাছ থেকে পাওয়া সনদ। মানতে হবে সামাজিক দূরত্ব।

আর পর্যটন সংশ্লিষ্ট কোনো প্রতিষ্ঠান যদি স্বাস্থ্যবিধি না মানে কিংবা সেখানে জীবাণু সংক্রমণের উৎস প্রমাণিত হলে পর্যটকদের চিকিৎসা ব্যয় বহন করতে হবে ঐ প্রতিষ্ঠানকে। এর বাইরেও উজবেকিস্তান শুধু চীন, ইসরাইল, জাপান ও দক্ষিণ কোরিয়া মতো কম ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোর পর্যটকদের বেড়ানোর সুযোগ দিচ্ছে। আর আপনি যদি যুক্তরাজ্য ও ইউরোপ থেকে সেখানে বেড়াতে যান, তবে ১৪ দিন থাকতে হবে কোয়ারেন্টিনে। যাবেন নাকি?

আরও পড়ুন-