আজ বারোটার মধ্যে দাবি মানার আল্টিমেটাম ছিলো আন্দোলননারীদের, অন্যথায় নির্বাচন কমিশন ঘেরাও! দাবি না মানায় আজ বুধবার বেলা সাড়ে ১২টায় শিক্ষার্থীরা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যের সামনে অবস্থান নেয়। বিভিন্ন হল থেকে পাঁচ শতাধিক শিক্ষার্থী যোগ দেয় এই কর্মসূচিতে। ঘণ্টাখানেক তারা সেখানে মিছিল ও বিক্ষোভ সমাবেশ করেন। সমাবেশ শেষে শিক্ষার্থীরা নির্বাচন কমিশন ঘেরাও করতে পদযাত্রা শুরু করেন। কিন্তু শাহবাগ মোড়ে তাদের আটকে দেয় পুলিশ।

এরপর শিক্ষার্থীরা শাহবাগ মোড়ে অবস্থান নিলে বেলা ২টার দিকে গুরুত্বপূর্ণ ওই মোড়ে যান চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। প্রায় এক ঘণ্টা সেখানে তাদের বিক্ষোভ চলে। বিকাল ৩টায় সেখানে পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করেন আন্দোলনের সমন্বয়ক জগন্নাথ হল ছাত্র সংসদের ভিপি উৎপল বিশ্বাস।

এক ঘন্টা শাহবাগ অবরোধ, নতুন কর্মসূচি দিয়েছে শিক্ষার্থীরা 1

তিনি বলেন, ভোটের তারিখ পরিবর্তনের দাবিতে বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী-কমকর্তা-কমচারীদের সঙ্গে নিয়ে রাজু ভাস্কর্যের সামনে অবস্থান নেবেন তারা। এছাড়া একই দাবিতে ঢাকা শহরের প্রতিটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীরা নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের সামনে অবস্থান কর্মসূচি পালন করবে।

এদিকে দুপুরে পুরান ঢাকার পোস্তগোলা ও মীরহাজিরবাগ এলাকায় ষষ্ঠ দিনের মতো নির্বাচনি প্রচারণাকালে তিনি এ দুঃখ প্রকাশ করেন। তাপস বলেন, ‘নির্বাচনি তফসিল ঘোষণার পর প্রার্থী হিসেবে প্রচারণা শুরু করেছি। আসলে আমি দুঃখিত, এ বিষয়টি কেন বা কীভাবে হয়েছে। এটা আগে থেকে নির্ধারণ করা হয়নি। আমি যতদূর জেনেছি, ইলেকশন কমিশন আলোচনা করেছিল। পঞ্জিকা অনুযায়ী এটা হয়তো ভুল হয়ে গেছে। তাদের (হিন্দু সম্প্রদায়) প্রতি আমার সমবেদনা ও সহমর্মিতা রয়েছে। তবে যেহেতু নির্বাচনের নির্ধারিত তারিখ রয়েছে, প্রার্থী হিসেবে আমাদের গণসংযোগ চালিয়ে যেতে হবে। আমি আশা করবো, সবাই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন।’