চাঁদপুর জেলার কচুয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শাহাজান শিশিরের কারামুক্তির দাবিতে বৃহস্পতিবার টিএসসির রাজু ভাস্কর্যের পাদদেশে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়সহ বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী এবং বাংলাদেশ ছাত্রলীগের (ঢাকায় অবস্থানরত বর্তমানে কেন্দ্র থেকে শুরু করে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় কিংবা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন হলপর্যায়ে দায়িত্বরত আছেন এমন এবং অবশ্যই কচুয়া উপজেলার সন্তান) নেতাকর্মীদের ব্যানারে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

প্রতিবাদী মানববন্ধনে বক্তারা অবিলম্বে চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শাহাজান শিশিরের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহার এবং আগামী ১৫ কার্যদিবসের মধ্যে তার নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেন।

কচুয়া উপজেলা চেয়ারম্যান শিশিরের মুক্তির দাবিতে মানববন্ধন 3

শাহাজান শিশির বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক ক্রীড়া সম্পাদ, ডঃ মুহম্মদ শহীদুল্লাহ হল ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি ছিলেন। শাহাজান শিশিরকে দলের এবং দেশরত্ন শেখ হাসিনার দুঃসময়ের পরীক্ষিত কর্মী হিসেবে উল্লেখ করে সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আবুল কালাম এবং বাণী ইয়াসমিন হাসি উভয়ই বলেন, আজকে শিশির কাল হয়তো আমি বা আপনি যে কেউ হতে পারে…! সুতরাং দলের সুসময়ের জুড়ে বসা মানুষগুলোর কাছে, আপার দুঃসময়ের কর্মীরা জিম্মি…এটা মেনে নেয়া সত্যিই কষ্টের।

মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, সাবেক ছাত্রলীগ নেত্রী বাণী ইয়াসমিন হাসি, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক হাসানুজ্জামান তারেক, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মুহিবুল্লাহ মাহি, দৈনিক জাগরণের সম্পাদক-সাবেক ছাত্রনেতা এফ এম শাহীন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি হাসান জাহাঙ্গীর সুজন, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি ইশতিয়াক আহমেদ শরীফ-সহ বাংলাদেশ ছাত্রলীগের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের নেতাকর্মী এবং কচুয়া উপজেলা ঢাকাস্থ বেশ কয়েকজন পেশাজীবী মানুষ উপস্থিত ছিলেন। যাদের বেশিরভাগই কচুয়া উপজেলার সন্তান।

সভাস্থল থেকে শাহাজান শিশির প্রসঙ্গে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি দেশরত্ন শেখ হাসিনার দ্রুত হস্তক্ষেপ দাবি করেন বক্তারা এবং প্রকৃত দোষীদের বিচারের দাবিও করেন তারা। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা ভূঁইয়া মোঃ ফয়েজউল্লাহ মানিক মানববন্ধন শেষে এই প্রতিবাদ সভাটি সঞ্চালনা করেন।