নওগাঁ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও নওগাঁ-৬ (আত্রাই-রানীনগর) আসনের এমপি ইসরাফিল আলম ১১ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর অবশেষে মারা গেলেন।

রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার (২৭ জুলাই) সকাল ৬.৪০ মিনিটে তিনি মৃত্যু বরণ করেন বলে নিশ্চিত করেছেন রানীনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. আল মামুন।

তীব্র শ্বাসকষ্ট নিয়ে তিনি গত ১৭ জুলাই থেকে স্কয়ার হাসপাতালে ভেন্টিলেশনে ছিলেন। তিনি স্ত্রী, দুই মেয়ে ও এক ছেলেসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

গত ৬ জুলাই চিকিৎসার জন্য শারীরিক অসুস্থতার কারণে তাকে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। ১২ জুলাই তার শারীরিক অবস্থার উন্নতি হওয়ায় তাকে বাসায় ফিরিয়ে নেয়া হয়।

তার স্ত্রী জানান, ১৭ জুলাই আবারো শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে এমপি ইসরাফিলকে হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। ২৪ জুলাই শ্বাসকষ্টের সমস্যা মারাত্মক আকার ধারণ করায় লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয় তাকে।

প্রসঙ্গত, ১৯৬৭ সালে রানীনগর উপজেলার গোনা ইউনিয়নের ঝিনা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন পেয়ে বিপুল ভোটে বিজয়ী হন তৎকালীন ঢাকা মহানগর শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক ইসরাফিল আলম। তার প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন সাবেক প্রতিমন্ত্রী আলমগীর কবীরের ছোট ভাই বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মুক্তিযোদ্ধা আনোয়ার হোসেন বুলু।

এর পর ২০১৪ সালে দশম জাতীয় সংসদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় এবং একাদশে সাবেক প্রতিমন্ত্রী আলমগীর কবীরকে পরাজিত করে নির্বাচিত হন ইসরাফিল আলম

উল্লেখ্য, নওগাঁ- ৬ আসন (রাণীনগর, আত্রাই) থেকে পর পর তিনবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। নওগাঁ জেলা আওয়ামী লীগে যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের পদে দায়িত্বরত ছিলেন তিনি। এছাড়া তিনি নওগাঁ জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় ফেডারেশনের সভাপতি এবং শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ছিলেন।