গ্রামীণফোন

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সার্টিফাইড ২৫ হাজার করোনা চিকিৎসকদের জন্য ১ টাকার বিনিময়ে আগামী ৬ মাসের জন্য প্রতি মাসে ৩০ জিবি ইন্টারনেট দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে মোবাইল অপারেটর গ্রামীনফোন।

চলমান করোনাভাইরাস সংকটের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে নানা উদ্যোগ ও অবদানের মাধ্যমে চিকিৎসক, গ্রাহক এবং ক্ষতিগ্রস্ত খুচরা ব্যবসায়ীদের পাশে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে অপারেটরটি । শুক্রবার বিকালে এক ভার্চুয়াল সংবাদ সম্মেলনে এসব উদ্যোগের ঘোষণা দিয়ে গ্রামীণফোনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ইয়াসির আজমান বলেন, “কোভিড-১৯ মোকাবেলায় আজ পর্যন্ত গ্রামীণফোনের সকল প্রতিশ্রুত উদ্যোগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১০০ কোটি টাকা।”

এছাড়াও এপ্রিল মাসে যে সকল গ্রাহক রিচার্জ করতে করেননি বা যাদের ব্যালেন্স নেই বললেই চলে- এমন এক কোটি গ্রাহককে ১০ কোটি মিনিট ফ্রি টকটাইম (গ্রাহক প্রতি ১০ মিনিট) দেয়া শুরু করেছে মোবাইল ফোন অপারেটর গ্রামীণফোন।

করোনা চিকিৎসকদের ৬ টাকায় ১৮০ জিবি ইন্টারনেট দিবে গ্রামীণফোন 1

গ্রামীণফোনের ১০০ কোটি টাকার সহায়তা কার্যক্রম যা যা থাকছে-

  • এক কোটি গ্রাহকের জন্য ১০ কোটি ফ্রি মিনিট
  •  স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সার্টিফাইড ২৫ হাজার করোনা চিকিৎসকদের জন্য ১ টাকার বিনিময়ে আগামী ৬ মাসের জন্য প্রতি মাসে ৩০ জিবি ইন্টারনেট
  • সকল গ্রামীণফোন গ্রাহকদের জন্য সকাল ৮টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত প্রতি মিনিট ৪৮ পয়সা কল রেট
  • মাইজিপি থেকে সাপ্তাহিক সকল ইন্টারনেট প্যাকে ১০০% বোনাস
  • ক্ষতিগ্রস্ত খুচরা ব্যবসায়ীদের জন্য ১০ কোটা টাকার নিরাপত্তামূলক ক্রেডিট স্কিম

সংবাদ সম্মেলনে ইয়াসির আজমান বলেন, “গ্রামীণফোন বিশ্বাস করে সরকার ও বিভিন্ন উন্নয়ন সহযোগীদের যৌথ কার্যক্রমের মাধ্যমে এই সংকট মোকাবেলা করা সম্ভব। করোনাভাইরাস মোকাবেলায় সম্মুখসারির যোদ্ধাদের ধারাবাহিক সহায়তার অংশ হিসাবে এ পর্যায়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর স্বীকৃত ২৫ হাজার চিকিৎসকদের সহযোগিতা কার্যক্রম আরও প্রসারিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে গ্রামীণফোন। এ কার্যক্রমের আওতায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর স্বীকৃত চিকিৎসকদের ১ টাকা টোকেন মূল্যের বিনিময়ে প্রতিমাসে ৩০ জিবি ইন্টারনেট দেয়ার ঘোষণা দিয়েছে গ্রামীণফোন। এই সুবিধা নির্ধারিত চিকিৎসকদের জন্য আগামী ছয় মাস চলমান থাকবে।”

তিনি আরও জানান, এপ্রিল মাসে রিচার্জ করতে পারেননি বা যাদের ব্যালেন্স নেই বললেই চলে এমন শনাক্তকৃত গ্রাহকদের ১০ কোটি মিনিটি ফ্রি টকটাইম দেয়া শুরু করেছে গ্রামীণফোন। প্রতিষ্ঠানটির এ উদ্যোগ মূল্যবান গ্রাহকদের তাদের প্রিয়জনদের সাথে যোগাযোগে সহায়তা করবে।

এছাড়াও জরুরি সেবাদাতা হিসেবে গ্রামীণফোন এ সঙ্কটকালীন সময়ে এর সাড়ে ৭ কোটি গ্রাহকের জন্য সকাল ৮টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত প্রতি মিনিট কলরেট ৪৮ পয়সা করেছে।

আরও পড়ুন-