মন্ত্রীর অনুদান পাওয়া আমাদের জন্য শুধু সম্মানের নয়, অর্জনও বটে। এবারই প্রথম নয়, এর আগেও বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের এই সৌভাগ্য হয়েছে। প্রতিবারই “গেলো, গেলো” টাইপ রব উঠেছে পেজে। আর আমরা জবাব দিয়েছি প্রভাবহীন কাজে, ত্যাগে।

আগের দিন আমাদের কল সেন্টারে অনুদানের ইচ্ছা প্রকাশ করেন শিক্ষা মন্ত্রী ডা. দীপু মনি। আমরাই অনুরোধ করি স্বেচ্ছাসেবকদের সাথে কিছুটা সময় কাটানোর জন্য, তাঁদের উৎসাহ দেয়ার জন্য।

বিশ্বাস করি নি যে তিনি আসবেন আমাদের ভাঙ্গা কিচেনে, স্বেচ্ছাসেবকদের অনুপ্রাণিত করবেন প্রতিবন্ধকতা জয়ে। কোন সাংবাদিক, পুলিশ কিংবা রাজনৈতিক নেতা-কর্মী সাথে আনেন নি।

ছবি তুলতে চান নি দুঃস্থদের মাঝে যাকাত হস্তান্তর কিংবা অনুদান দেয়ার সময়। শেষে স্বেচ্ছাসেবকদের অনুরোধে কিছু ছবিতে সংযুক্ত হন। বেশীরভাগ সময়ই কাটিয়েছেন স্বেচ্ছাসেবকদের মুখে গল্প শুনতে আর ব্যক্তিগত মোবাইলে কিছু ছবি তুলতে।

“বিদ্যানন্দের ব্যাপারে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও বেশ ভালোভাবেই অবগত আছেন। ভয় কি তোমাদের, কাজ করে যাও। মানুষের কথায় কান দিও না।” – মন্ত্রীর মুখে এমন কথা শোনার পর স্বেচ্ছাসেবকরা বেশ আত্মবিশ্বাসী।

চাইলেই আপনিও আশেপাশের মানুষ এবং উদ্যোগকে অনুপ্রাণিত করতে পারেন ব্যস্ত সময়ের মাঝে কিছুটা ভাগ দিয়ে, সুন্দর কথা বলে। নিন্দুকের কথায় অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত স্থাপনে ভয় না পাওয়ার অনুরোধ রইলো। (বিদ্যানন্দ’র ফেইসবুক পেজ থেকে)