তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম ম্যাচে ২৫৬ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ১২.২ ওভার হাতে রেখেই জিতেছে ১০ উইকেটে! ভারতের মাটিতেই ফিঞ্চ-ওয়ার্নারের ঝড়ে ভারতকে উড়িয়ে ১-০ তে এগিয়ে গিয়েছে।

তবে ম্যাচটা নিশ্চিতভাবেই ভুলে যেতে চাইবে ভারত। কারণ মুম্বাইয়ে আজ রেকর্ডবুকে যা কিছু উঠেছে, সবই গিয়েছে ভারতে বিপক্ষে। একদিনের আন্তর্জাতিক ম্যাচে কোন উইকেট না হারিয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান (২৫৮) তাড়া করে জয়ের ঘটনা এটি। আর ভারত পঞ্চম বারের মত ১০ উইকেটে হেরেছে কাল, নিজেদের মাটিতে যেটি দ্বিতীয়!

এছাড়াও ভারতের বিপক্ষে যেকোন দলেরই সর্বোচ্চ পার্টনারশিপের রেকর্ডটাও নতুন করে লিখতে হবে আজ। ওয়ার্নার-ফিঞ্চ (২৫৮*) সেটিকে নিজেদের করে নিয়েছেন। আগের রেকর্ডও অবশ্য ছিলো অজিদের দখলেই, স্টেভেন স্মিথ-জর্জ বেইলি তৃতীয় উইকেট জুটিতে করেছিলেন ২৪২ রান। দক্ষিণ আফ্রিকার গ্যারি কারেস্টেন ও হার্সেল গিবস মিলে প্রথম উইকেট জুটিতে করেছিলেন ২৩৫, রিকি পন্টিং-মার্টিন তৃতীয় উইকেট জুটিতে করেছেন ২৩৪। রেকর্ডের এই তালিকায় এরোন ফিঞ্চ-ডেভিড ওয়ার্নার জুটি আগেও নিজেদের নাম লিখিয়েছিলেন, প্রথম উইকেট জুটিতে করেছিলেন ২৩১ রান। এবং সেবারও এই কীর্তি করেছেন ভারতের মাটিতেই, ২০১৭ সালের, ভেন্যু ছিলো ব্যাংগালোর।

এই রেকর্ডগুলো নিশ্চয়ই ভুলে যেতে চাইবে ভারত! 1

ভারত ভুলে যেতে চাইবে এমন আরও একটি কীর্তি ঘটেছে আজ। একদিনের ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে দুইজন ওপেনারই শতক হাঁকিয়েছেন, এমন এর আগে ঘটেছে পাঁচবার৷ ফিঞ্চ-ওয়ার্নার সে তালিকায় নতুন সংযোজন! ১৯৮৬ সালে মার্শ-বোন, ২০০০ সালে কারেস্টেন-গিবস, ২০১২ সালে হাফিজ-জামশেদ। ২০১৩ সালে থারাঙ্গা-জয়বর্ধানে, কক-আমলাও করেছে একই সালে।

রাজকোটে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে দুই দল মুখোমুখি হবে ১৭ তারিখে, সেই ম্যাচ জিতলে ভারতের মাটি থেকে টানা দ্বিতীয় ওয়ানডে সিরিজ জয় নিশ্চিত হবে অস্ট্রেলিয়ার। ভারত কি তা হতে দিবে?