নিজের তৈরী প্রথম সিনেমার শুটিং করেছেন পাক্কা দুই বছর ধরে, একটা প্রত্যন্ত অঞ্চলের গ্রামীণ পরিবেশে। দৃশ্য ধারণে রেখেছেন একেবারেই আমাদের চেনাজানা গ্রামীণ আবহ, যার সাথে আমাদের নাড়িরটান। পরিচালক নিয়মুল মুক্তা অবশ্য ‘কাঠবিড়ালী’র গল্পটা পুষে রেখেছেন অনেকদিন ধরেই। গল্পটা লালন করেছেন, পুষে বড় করেছেন নিজের ভেতরে। সিনেমার গল্পটা প্রেমের, এই সময়ের। গাঁয়ের কিন্তু আধুনিক ও স্বাধীনচেতা মেয়ের। এতে কাজল চরিত্রে অভিনয় করেছেন অর্চিতা স্পর্সিয়া, সঙ্গে হাসু চরিত্রে অভিনয় করতে দেখা যাবে রূপালী পর্দায় নতুন মুখ থিয়েটার অভিনেতা আসাদুজ্জামান আবিরকে। সিনেমার প্রায় পুরোটাই শুটিং হয়েছে পাবনা জেলার ভাংগুরা উপজেলার গজারমারা গ্রামে।

এই সিনেমায় পরিচালক নিয়ামুল মুক্তা অভিনেতা-অভিনেত্রী নির্রাচন করেছেন তাদেরকেই- যারা লম্বা সময় দিতে পারবে কাঠবিড়ালি’কে, গল্পটা ধারণ করতে নিজেকে ভাঙ্গতে পারবে ইচ্ছামতো। সিনেমার সবচেয়ে অবাক করে দেয়া বিষয় হচ্ছে- অভিনেতা-অভিনেত্রী থেকে শুরু করে সেটের একজন মেকাপ আর্টিস্ট পর্যন্ত কেউই পারিশ্রমিক নেননি। এই সম্পর্কে নির্মাতার বক্তব্য- “আসলে আমি পারিশ্রমিক দিলে সিনেমাটার শ্যুটিং করতে পারতাম না। যেহেতু কোন লগ্নি ছাড়াই নিজস্ব অর্থায়নে বানানো সিনেমা, সেখান থেকে পুরো টিমে সমর্থন না থাকলে এটা (কাঠবিড়ালী সিনেমা) হয়তো কখনো বানানোই হতো না।”

মুক্তি পেয়েছে বিনা পারিশ্রমিকের ছবি 'কাঠবিড়ালী' 1

পারিশ্রমিক ছাড়াই কাজ করার প্রস্তাব পাওয়া ও কাজ করার বিষয়টি সম্পর্কে স্পর্সিয়া জানান- “একজন শিল্পীর সম্মানী শুধুমাত্র কাগজের নোটের টাকায় হতে পারে বলে আমি মনে করিনা। হয়তো আমি এই সিনেমা থেকে টাকা পাইনি, যেটা অন্য কাজ থেকে পাই। কিন্তু এই সিনেমা থেকে আমি পেয়েছি অনেক, একটা ভালো পেয়েছি। একটা সুন্দর গল্প পেয়েছি যেখানে চরিত্রটাকে ভালোবাসা যায়।”

আমাদের সিনেমা পাড়ার ইতিহাসে যা ঘটেনি, তেমন আরেকটি ইতিহাস গড়েছে এই ‘কাঠবিড়ালী’ সিনেমাটি। নির্মাতা সিনেমাটির ‘প্রিমিয়ার শো’ করেছেন তার গ্রামে, যে গ্রামে শুটিং হয়েছিলো সেখানে। গ্রামের সেই প্রিমিয়ার শো’কে কেন্দ্র করে প্রায় মেলা জমে গিয়েছিলো, চটপটি-ফুচকার দোকানে ভরে গিয়েছিলো শো’য়ের বাগান। অজপাড়া গাঁয়ে সিনেমার প্রিমিয়ারের এমন ভাবনা সম্পর্কে নিয়ামুল মুক্তা জানান- “যে মানুষগুলোর ভালোবাসা না থাকলে সিনেমাটা ঠিকঠাক বানাতে পারতাম। আমি চেয়েছি, এই মানুষদের সাথে বসেই আমি সিনেমাটির প্রথম শো দেখতে চাই।”

মুক্তি পেয়েছে বিনা পারিশ্রমিকের ছবি 'কাঠবিড়ালী' 2

সিনেমাটি গতকাল (১৭ জানুয়ারি) মুক্তি পেয়েছে প্রেক্ষাগৃহে। প্রথম সপ্তাহে ১৮ টি হলে মুক্তি দেয়া হয়েছে, এরপর হল বাড়ানোর কথা জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।